কোহলি-রোহিত: অধিনায়কত্বের লড়াই

ব্যাটসম্যান কোহলিতে সমর্থকরা যতটা মুগ্ধ, অধিনায়ক কোহলিতে সবাই ততটাই রুষ্ট। ভারতীয় জাতীয় দলের এ অধিনায়ক গত আট বছর ধরে নেতৃত্ব দিচ্ছেন আইপিএলের তারকাখাসা দল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুকে। কিন্তু শিরোপা জেতাতো দূরে থাক, কোহলি দায়িত্ব নেয়ার আগের পাঁচ মৌসুমে দুইবার ফাইনালে খেলা দলটি কোহলির নেতৃত্বে গ্রুপ পর্বের গন্ডিই পেরিয়েছে মাত্র তিনবার। আর তাতে সাফল্য বলতে একবার দলকে ফাইনালে খেলা পর্যন্তই।

অধিনায়ক হিসেবে কে সেরা?

সুযোগের কথা বললে বিরাট কোহলির তুলনায় রোহিত শর্মা খুব একটা সুযোগই পাননি। তারপরও সাফল্যের বিচারে রোহিতের আশেপাশেও নেই কোহলি। একদিকে কোহলি তার অধিনায়কত্ব জীবনে ঘরোয়া বা আর্ন্তজাতিক কোনো ট্রফি কখনো জিততে পারেননি। অন্য দিকে রোহিত আইপিএলই জিতেছেন রেকর্ড ৫ বার। এ ছাড়া জাতীয় দলে ‘ভারপ্রাপ্ত’ হিসেবেই যে সামান্য সুযোগ পেয়েছেন, তাতে দুটো ট্রফি জিতেছেন।

রোহিতের ৭ ট্রফির বিপরীতে কোহলির শূন্যতা তাই আবার আলোচনাটা তীব্র করেছে। ভারত জুড়ে আবারও জোর দাবি উঠেছে, কোহলিকে সরিয়ে অন্তত সীমিত ওভারে অধিনায়ক করা হোক রোহিতকে।

কোহলি যখন মহেন্দ্র সিং ধোনির কাছ থেকে দলের দায়িত্ব বুঝে পেলেন, তাঁর বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো ধোনির বিশাল অর্জনের ঝুলির ভার বহন করা। অধিনায়ক হিসেবে ধোনি জেতেননি এমন কোনো ট্রফি ক্রিকেট দুনিয়ায় নেই। কিন্তু তাঁর উত্তরাধিকারী হিসেবে কোহলি কোনো ট্রফি এখনও জিতে দেখাতে পারেননি।

এদিকে এবারের আইপিএলেও ‘অধিনায়ক’ রোহিত শর্মার পারফরম্যান্সে মুগ্ধ সমগ্র ক্রিকেট দুনিয়া। তাইতো আবার ভারতজুড়ে মুখর হয়েছে রোহিত শর্মাকে ভারতের নিয়মিত অধিনায়ক করার দাবি। ‘অধিনায়ক’ কোহলিকে ব্যর্থ দাবি করে সে দাবিতে সুর মিলিয়েছেন সমর্থক থেকে শুরু করে ভারতের রথী-মহারথী তারকারা।

ব্যাটসম্যান কোহলিতে সমর্থকরা যতটা মুগ্ধ, অধিনায়ক কোহলিতে সবাই ততটাই রুষ্ট। ভারতীয় জাতীয় দলের এ অধিনায়ক গত আট বছর ধরে নেতৃত্ব দিচ্ছেন আইপিএলের তারকাখাসা দল রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুকে। কিন্তু শিরোপা জেতাতো দূরে থাক, কোহলি দায়িত্ব নেয়ার আগের পাঁচ মৌসুমে দুইবার ফাইনালে খেলা দলটি কোহলির নেতৃত্বে গ্রুপ পর্বের গন্ডিই পেরিয়েছে মাত্র তিনবার। আর তাতে সাফল্য বলতে একবার দলকে ফাইনালে খেলা পর্যন্তই।

এবারের আইপিএলে কোনরকমে গ্রুপ পর্বের বৈতরণী পার হওয়া বেঙ্গালুরু এলিমিনেটর ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের কাছে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয়ার পর এবার কোহলিকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন ভারতের সাবেক তারকা দুই ব্যাটসম্যান গৌতম গম্ভীর ও সঞ্জয় মাঞ্জরেকার।

শুধু তাই নয়, রোহিতকে অধিনায়ক করার পক্ষে ভোট দিয়েছেন সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইকেল ভনও। নেতৃত্বের অপরিসীম দক্ষতা, খেলোয়াড়দের বুঝতে পারা ও সঠিকভাবে পরিচালনা করতে পারা প্রভৃতি যোগ্যতাই রোহিতকে অধিনায়ক করার দাবিকে জোরালো করেছে বলে মত ক্রিকেট বিশ্লেষকদের।

গৌতম গম্ভীরতো সেখানে আরেক ধাপ এগিয়ে। প্রাক্তন এ ওপেনারের মতে, এখনই অন্তত সীমিত ওভারের ক্রিকেটে হলেও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স অধিনায়ক রোহিত শর্মার হাতে তুলে দেওয়া উচিত ভারতীয় দলের অধিনায়কত্ব। কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে দুইবার আইপিএল শিরোপা জেতা এ অধিনায়ক বলেন, ‘রোহিত যদি ভারতের অধিনায়ক না হয় তবে সেটা ভারতেরই ক্ষতি। আমি অবশ্যই মানি যে এক জন অধিনায়ক ততটাই ভাল, যতটা তাঁর দল। তবে এক জন ক্যাপ্টেনেরও মান নির্ণয় করা যায়। এই ক্ষেত্রে মাপকাঠিটা সকলের ক্ষেত্রে সমান হওয়া উচিত। রোহিত আইপিএলে অধিনায়ক হিসেবে পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন করেছে নিজের দলকে।’

নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে এ পর্যন্ত রোহিত শর্মার নেতৃত্ব দেয়া ১৯টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ভারত জয় পেয়েছে ১৪টি ম্যাচে, একদিনের ক্রিকেটে ১০ ম্যাচের মধ্যে জয় পেয়েছে ৮ টিতেই। যেখানে নিয়মিত অধিনায়ক কোহলির নেতৃত্বে কোন শিরোপাই জিততে পারেনি ভারত, সেখানে অন্তর্বর্তীকালীন দায়িত্ব নিয়েই রোহিত ভারতকে জিতিয়েছেন এশিয়া কাপ ও নিদাহাস ট্রফির শিরোপা।

কোহলি যেখানে অধিনায়ক হিসেবে ঘরোয়া কিংবা আন্তর্জাতিক সব আসরেই দলকে শিরোপা জেতাতে ব্যর্থ সেখানে অন্তবর্তীকালীন দায়িত্ব নিয়ে ভারতীয় দলকে এশিয়া কাপ ও নিদাহাস ট্রফিতে চ্যাম্পিয়ন করার পাশাপাশি রোহিত শর্মা মুম্বাইকে জিতিয়েছেন ২০১৩, ২০১৫, ২০১৭, ২০১৯ ও ২০২০- এই পাঁচটি আসরের শিরোপা।

এর বাইরে ২০০৯ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় বসা আইপিএলের দ্বিতীয় আসরে ডেকান চার্জার্সের হয়েও শিরোপা জেতা হয়েছে রোহিতের। রোহিত শর্মা একমাত্র খেলোয়াড় যার ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা ও সংযুক্ত আরব আমিরাত- এই তিনটি দেশ থেকেই আইপিএল জেতার রেকর্ড আছে। রোহিতের নেতৃত্বের ঝলকে সর্বশেষ ৪ আসরের তিনটিতেই চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। মহেন্দ্র সিং ধোনীর পর দ্বিতীয় অধিনায়ক হিসেবে রোহিত শর্মা সফল হয়েছেন শিরোপা ধরে রাখার চ্যালেঞ্জেও।

সবাই যাকে ‘ক্যাপ্টেন কুল’ বলে জানে, মানে সেই ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির ছায়ায় বেড়ে ওঠা বিরাট কোহলি যে অধিনায়ক হিসেবে অতটা কার্যকর নন, এ নিয়ে আলোচনা আজকের নয়।

কোহলিকে সরিয়ে রোহিতকে অধিনায়ক করার দাবি ক্রিকেটবোদ্ধা থেকে ভারতীয় মিডিয়া-সমর্থকরা তুলে থাকেন ক্ষণে ক্ষণেই। এবারের আইপিএলে আবারো ধারাবাহিকতা মেনে কোহলির ব্যর্থতা আর রোহিতের ঈর্ষনীয় সাফল্যে সে দাবির পালে হাওয়া জোরালো হলো আরো।

 

এদিকে এখনো রোহিত শর্মাকে অধিনায়কত্ব না দিয়ে বিরাট কোহলিকে নেতৃত্বে রাখায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমর্থকরা বেজায় চটেছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড -বিসিসিআই ও এর কর্তাব্যক্তিদের উপর।

কোহলি নেতৃত্বে থাকাকালীন অদূর ভবিষ্যতেও ভারত বড় কোনো ট্রফি জিততে পারবে না- এমন মন্তব্যও করেছেন তারা।  সমর্থকরা বিসিসিআইয়ের কাছে জোর দাবি করেছেন রোহিতকে অধিনায়ক করার জন্য।

তবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের জন্য এই সিদ্ধান্তটা নেওয়া সহজ হবে না।

প্রথমত অধিনায়কত্ব থেকে কোহলিকে পুরোপুরি সরিয়ে দিলে তার খেলায় এটার প্রভাব পড়তে পারে। কোহলি মানুষ হিসেবে নিজের প্রভাব বিস্তার করে চলতে পছন্দ করেন। এমনকি দলের কোচও তার পছন্দের হতে হয়। আর ভারতীয় বোর্ড গত কিছু বছর কোহলির এই চাওয়াকে গুরুত্ব দিয়ে এসেছে। ফলে অনিল কুম্বলের মতো সফল কোচকে সরিয়ে তারা কোহলির পছন্দে আবার রবি শাস্ত্রীকে নিয়ে এসেছে।

এ অবস্থায় কোহলির হাত থেকে অধিনায়কত্ব পুরোপুরি নিয়ে নিলে তার পারফরম্যান্সে প্রভাব পড়ার ভয় থেকেই যায়। বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্রিকেটারকে নিয়ে সেই ঝুকিটা ভারত নেবে কি না, সন্দেহ আছে।

আবার দ্বিতীয় উপায় থাকে টেস্ট ও সীমিত ওভারে আলাদা অধিনায়ক করা। ভারত সবসময়ই এই একাধিক অধিনায়ক প্রথার বিরোধিতা করেছে। যে দু একবার তারা এটা করেছে, খুব সাফল্য আসেনি। ফলে এই পথে বোর্ডের আরেকবার হাটা কঠিন।

মোট কথা বলাই যায় কোহলি বনাম রোহিত নিয়ে একটা বিপাকেই আছে ভারত।

আরও পড়ুন

Leave A Reply

Your email address will not be published.