তাঁদের প্রথম আইপিএল পারিশ্রমিক

এত এত তারকার সমাগম, মোটা অংকের টাকা সাথে নিজের প্রতিভা দেখানোর মঞ্চ। সবমিলিয়ে নিজেকে তারার মেলায় নিয়ে যাবার সুযোগ, নক্ষত্র হয়ে উঠার সুযোগ। আজ আমরা এমন কিছু ক্রিকেটারের প্রথম আইপিএলের উপার্জন নিয়ে বলবো যারা পরবর্তীকালে হয়ে উঠেছেন ক্রিকেট দুনিয়ার নক্ষত্র। আর বলাই বাহুল্য, একদমই শূন্য থেকে শুরু করেছেন তাঁরা।

প্রথম সবকিছুই তো বিশেষ হয়। প্রথম উপার্জনও তেমনি। যেকোনে পেশাতেই প্রথম উপার্জন শুধু উপার্জনই নয় বরং এতে মিশে থাকে অনেকটা আবেগ, ভালবাসা ও অনেকগুলো বছরের পরিশ্রম। আর সেটা যদি হয় আইপিএলের প্রথম উপার্জন, তা তো একজন ক্রিকেটারের জন্য স্বপ্ন।

এত এত তারকার সমাগম, মোটা অংকের টাকা সাথে নিজের প্রতিভা দেখানোর মঞ্চ। সবমিলিয়ে নিজেকে তারার মেলায় নিয়ে যাবার সুযোগ, নক্ষত্র হয়ে উঠার সুযোগ। আজ আমরা এমন কিছু ক্রিকেটারের প্রথম আইপিএলের উপার্জন নিয়ে বলবো যারা পরবর্তীকালে হয়ে উঠেছেন ক্রিকেট দুনিয়ার নক্ষত্র। আর বলাই বাহুল্য, একদমই শূন্য থেকে শুরু করেছেন তাঁরা।

  • বিরাট কোহলি

এখন হয়তো কোহলি আইপিএলে সবচেয়ে বেশি উপার্জন করেন।  তবে ২০০৮ সালে প্রথম যখন  আইপিএলে খেলেন তখন তাঁকে কেনা হয়েছিল মাত্র ১২ লাখ রূপিতে। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী দলের ক্রিকেটারদের আটটা ফ্র্যাঞ্চাইজি তে ভাগ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছিল সেবার। দিল্লি ডেয়ারডেভিলস প্রথম তাঁকে কেনার সুযোগ পেলেও বিরাটকে দলে ভিড়াতে আগ্রহ দেখাননি তারা। তারপর রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালোর তাঁকে কিনে নেয়। তারপর থেকে শুরু হয় এক নতুন ইতিহাস।

  • রোহিত শর্মা

২০০৮ সালে রোহিত শর্মা ইতিমধ্যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আলো ছড়াতে শুরু করেছেন। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তাঁর আক্রমনাত্মক ব্যাটিং এর জন্য তখন তাঁকে ভারতের নতুন ব্যাটিং কান্ডারী ভাবা হচ্ছিল। ফলে নিলামে ডেকেন চার্জার্স যেভাবেই হোক এই ওপেনার কে দলে ভিড়াতে চাইছিল। শেষমেশ তারা তিন কোটি রূপিতে এই ব্যাটসম্যানকে কিনে নেয়। সেই সময়ের হিসাবে বেশ চড়া মূল্যই পেয়েছিলেন এই ব্যাটিং তারকা।

  • জাসপ্রিত বুমরাহ

বর্তমানে ভারতের পেস বোলিং লাইন আপের নেতৃত্বে এই পেসার। মুম্বাই ইন্ডিয়ানস বেশ আগে থেকেই নজর রেখেছিল এই বোলারের উপর। ফলে ২০১৩ সালে মাত্র ১০ লক্ষ রূপিতে বুমরাহকে দলে ভিড়ায় মুম্বাই। অনেকেই ভেবেছিলেন শুধু তাঁর বোলিং অ্যাকশনের জন্যই বুমরাহকে দলে নিয়েছিল মুম্বাই। তবে খুব দ্রুতই তিনি তাঁর বোলিং স্কিল দিয়ে সবাইকে চমকে দেন। বর্তমানে তিনি ক্রিকেট দুনিয়ার বেশ বড় সম্পদ।

  • হার্দিক পান্ডিয়া

ভারতের এই অলরাউন্ডারকেও খুঁজে বের করে আনে মুম্বাই ইন্ডিয়ানস। পান্ডিয়ার উপরও বেশ আগে থেকেই নজর রাখছিল এই ফ্র্যাঞ্চাইজি দল। ২০১৫ সালে মাত্র ১০ লাখ ভারতীয় রূপিতে এই পেস বোলিং অলরাউন্ডারকে দলে ভিড়ায় মুম্বাই। পান্ডেয়া খুব দ্রুতই তাঁর বড় শট খেলার সক্ষমতার জন্য আইপিএলের হট কেক হয়ে যান। তিনি তাঁর বোলিং দিয়েও দলের জয়ে ভূমিকা রাখেন। টানা মৌসুমের পর মৌসুম এমন অসাধারণ পারফর্মেন্স দেখিয়ে তিনি এখন ভারতের জাতীয় দলের বড় সম্পদ।

  • কে এল রাহুল

ঘরোয়া ক্রিকেটেও রাহুলকে কখনো টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের জন্য বিবেচনা করা হতো না। কিন্তু অসাধারণ টেকনিকালি সলিড এই ব্যাটসম্যানের মধ্যে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলার সম্ভাবনা দেখতে পায় আরসিবি। ফলে ২০১৩ সালে ১০ লাখ রূপিতে রাহুলকে দলে নেয় আরসিবি। ২০১৬ সালে বেশ নজর কাড়া পারফর্মেন্স করেন এই ব্যাটসম্যান। পরবর্তীতে সাদা বলের ক্রিকেটে ভারতের হয়ে অভিষিক্ত হন এই ক্রিকেটার। বর্তমানে তিনি ভারত দলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...