গতির সাথে আপোষহীন একাদশ

এই একাদশ এমন এক একাদশ যেখানে সবাই পেসার। বর্তমান সময়ের সব সেরা পেসাররা যদি একসাথে টেস্ট খেলতে নামেন তবে কেমন হবে? তবে আজ তাঁদের বোলিং নিয়ে কোন কথা হবেনা, শুধু ব্যাটিং।

কতরকম একাদশই তো দেখা গেলো। এবার আমরা অন্যরকম একটা একাদশ করি।

এই একাদশ এমন এক একাদশ যেখানে সবাই পেসার। বর্তমান সময়ের সব সেরা পেসাররা যদি একসাথে টেস্ট খেলতে নামেন তবে কেমন হবে? তবে আজ তাঁদের বোলিং নিয়ে কোন কথা হবেনা, শুধু ব্যাটিং।

একটু বলে রাখা দরকার একাদশে নিখাঁদ পেসাররাই সুযোগ পেয়েছেন, পেস বোলিং অলরাউন্ডাররা নন। আর সবাই বর্তমান সময়ের ক্রিকেটার। তো শুরু করা যাক।

  • স্টুয়ার্ট ব্রড (ইংল্যান্ড)

এই একাদশের তিনিই একমাত্র ব্যাটার যার টেস্টে শতক রয়েছে।টেস্টে ৩০০০ এর অধিক রান করেছেন তিনি। গড়টাও খারাপ নয়-১৯ ছুইছুই। ১৩ অর্ধশতকের সাথে রয়েছে ১টা শতক। ব্যাটিংটা তিনিই শুরু করতে পারবেন।

  • মিশেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া) 

বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা এই বাহাতি পেসার টেস্টে ভালোই ব্যাটিং করেন।ব্রড এর সাথে ভালো শুরু করতে পারবেন টেস্টে ২২ গড় আর ১০ অর্ধশতকে দেড় হাজারেরও বেশি রান করা এই পেসার। টেস্টে সর্বোচ্চ ৯৯।

  • প্যাট কামিন্স (অস্ট্রেলিয়া)

টেস্টে বোলিং র‍্যাংকিং এ বর্তমানে ১ নম্বরে আছেন এই ডানহাতি ব্যাটার। তার ব্যাটিংটা কেমন তা তিনি এই আইপিএলেই বুঝিয়ে দিচ্ছেন। টেস্টে ৭০০-এর ওপর রান করেছেন তিনি। ফিফটি আছে দুটি। রান করেন ১৬ গড়ে। ওয়ানডাউনে তিনি ভালোই করতে পারবেন।

  • টিম সাউদি (নিউজিল্যান্ড)

কিউইদের অন্যতম সেরা পেসার তিনি। ডানহাতি এই খেলোয়াড় ব্যাটার হিসেবে খারাপ নন। দেড় হাজারের বেশি রান আছে তার টেস্টে। ফিফটিও আছে পাঁচটি। ১৭ গড়ের এই খেলোয়াড় এই দলের চার নম্বরে ব্যাটিং এর জন্য পারফেক্ট।

  • ট্রেন্ট বোল্ট (নিউজিল্যান্ড)

বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা বাহাতি পেসার তিনি। এই দলের মিডলঅর্ডারে ভালো করতে পারেন তিনি। টেস্টে গড় ১৫। এক ফিফটিতে ছয় শতাধিক রান করেছেন।

  • জশ হ্যাজেলউড (অধিনায়ক)

এই দলের অধিনায়ক তিনি কারণ তিনি টিম পেইনের সহকারী। এই দলে পেইন না থাকায় দলের ব্যাটনটা তিনিই ধরবেন। টেস্টে চারশোর বেশি রান আছে তার। গড়টাও ভালো,১২।

  • নিল ওয়াগনার (নিউজিল্যান্ড)

বর্তমানে টেস্ট ক্রিকেটের অন্যতম সেরা পেসার তিনি। তবে এই দলে ৭ নম্বরে তিনি ভালোই ব্যাট করবেন বলে আশা করা যায়। সাড়ে ছয়শো রান করেছেন ১৪ গড়ে। নামের পাশে আছে একটি ফিফটি।

  • কাগিসো রাবাদা (দক্ষিণ আফ্রিকা)

দক্ষিণ আফ্রিকার এই পেসার ভালোই ব্যাট চালাতে পারেন। টেস্টে ছয়শো’র মত রান করেছেন ১১ গড়ে। দলের প্রয়োজনে নাইটওয়াচম্যান হিসেবেও নামতে পারেন তিনি।

  • জেমস আন্ডারসন (ইংল্যান্ড)

পেসারদের একাদশ হবে আর সেখানে জিমি আন্ডারসন থাকবেননা তাতো হয়না। টেস্টে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী পেসার ভালো ব্যাটিং জানেন। লোয়ারঅর্ডারে কিছু প্রয়োজনীয় রান এনে দিতে পারবেন তিনি দলকে। বারোশো টেস্ট রান আছে তার নামের পাশে। গড় অবশ্য ৯.৫।

  • জোফরা আর্চার (ইংল্যান্ড)

নিজের বোলিং দিয়ে যেকোনো ব্যাটার এর ঘুমে সমস্যা ধরিয়ে দিতে পারেন তিনি।টেস্টে ৭.৭৫ গড়ে ১৫০ রান করেছেন তিনি। ব্যাট হাতে কি করেন সেটাই দেখার।

  • জাসপ্রিত বুমরাহ (ভারত)

ভারতের বোলিং লাইনআপের এই কান্ডারি এই দলের শেষ অন্তর্ভুক্তি। টেস্টে ২.৫৩ গড়ে ৪৩ রান করেছেন তিনি। সর্বোচ্চ কত সেটা নাহয় নাই বলি। খেলার সময় সবাই তার বোলিংয়ের দিকেই থাকাবে। আর যদি ব্যাট হাতে কিছু রান করেন তো সেটা দলের জন্য ভালোই হবে।

দ্বাদশ খেলোয়াড়: মোহাম্মদ আব্বাস (পাকিস্তান)।

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...