পাকিস্তানের বিপক্ষে বিরাটের ‘প্রথম’ ব্যর্থতা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পাকিস্তানের বিপক্ষে আগের পাঁচ ম্যাচে কোহলির রান ছিল ৩০৮। এবার তাঁর সাথে যোগ করতে পারলেন আর মাত্র চার রান। মাত্র চার রানেই নিউ ইয়র্কের মাটিতে থামতে হল তাঁকে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পাকিস্তানের বিপক্ষে আগের পাঁচ ম্যাচে কোহলির রান ছিল ৩০৮। এবার তাঁর সাথে যোগ করতে পারলেন আর মাত্র চার রান। মাত্র চার রানেই নিউ ইয়র্কের মাটিতে থামতে হল তাঁকে।

ইনিংসের মাত্র দ্বিতীয় ওভারেই তিনি বিদায় নিলেন। পাকিস্তানি পেসার নাসিম শাহর বলে কভার পয়েন্টে দাঁড়ানো উসমান খানের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ইতি ঘটল কোহলির। আগের ম্যাচে ব্যর্থ ছিলেন আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে, এবার ব্যর্থ ‘প্রিয়’ প্রতিপক্ষ পাকিস্তানের বিপক্ষেও।

২০১২ থেকে ২০২২ – সবগুলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের অন্যতম আকর্ষণ ছিলেন বিরাট কোহলি। আর তিনি আকর্ষণীয় পারফরম্যান্সও দেখিয়েছেন। পাঁচটি ম্যাচের মধ্যে চারটিতেই হাফ সেঞ্চুরি আছে তাঁর। যেটাতে হাফ সেঞ্চুরি পাননি সেটাতেও করেছিলেন ৩৬ রান, ২০১৪ সালে ঢাকার মিরপুরে।

আর গেল বিশ্বকাপে বিরাট কোহলি থেকে রীতিমত ইতিহাসই গড়েন। মেলবোর্নে সেবার ৫৩ বলে খেলেন ৮২ রানের অপরাজিত এক ইনিংস। খাদের কিনারা থেকে ভারতকে টেনে তুলে নিয়ে যান জয়ের বন্দরে। হারিস রউফকে স্ট্রেইট ড্রাইভ করে যে ছক্কা হাঁকান, সেটা লেখা হয়ে গেছে ইতিহাসের পাতায়।

তবে, এবার আর নতুন কোনো ইতিহাস লেখা হল না কোহলির। ছোট্ট সংস্করণের বিশ্বকাপের মঞ্চে দ্বিতীয়বারের মত তাঁকে আউট করলেন কোনো ভারতীয় বোলার। ২০২১ সালে দুবাইয়ে তিনি আউট হয়েছিলেন শাহীন শাহ আফ্রিদির বলে। আর এবার নাসিম শাহ।

যদিও, এটা ঠিক যে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কোনো নির্দিষ্ট দলের বিপক্ষে এত রান এর আগে কেউ করতে পারেননি। সমান ছয়টি ম্যাচ খেলে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২৮৯ রান করেছিলেন ক্রিস গেইল। সেই গেইলের দিন শেষ হয়ে গেছে। এবার কি কোহলিও নিজের বিদায় দেখতে শুরু করেছেন?

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...