ব্যাটিং কোচ জন লুইস?

ইংল্যান্ডের প্রথম শ্রেণির সাবেক ক্রিকেটার এবং ২০১৯ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কা দলের ব্যাটিং পরামর্শক হিসাবে দায়িত্ব পালন করা জন লুইসই হতে যাচ্ছেন টাইগারদের পরবর্তী ব্যাটিং কোচ। জন লুইস দীর্ঘ দিন কাউন্টি দল ডারহামের হেড কোচ ও  সাসেক্সের সহকারী কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন। ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হেড কোচও ছিলেন তিনি।

গত মার্চ থেকেই করোনার কারণে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে রয়েছে বাংলাদেশ। গত আগস্টে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা অনুশীলনে ফিরলেও সেখানে ছিলেন না ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি। ২১ আগস্ট পারিবারিক কারণে বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। ম্যাকেঞ্জির বিদায়ের পর টাইগারদের ব্যাটিং পরামর্শক হিসাবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন ক্রেগ ম্যাকমিলান। কিন্তু বাবার মৃত্যুতে তিনিও দায়িত্ব নেওয়ার আগেই ছেড়ে দেন।

চলতি মাসে টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। করোনা ইস্যুতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে দলের সাথে যোগ দিবেন না স্পিন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরি। তবে ব্যাটিং কোচ না থাকলেও অনুশীলন শুরুর আগেই কোচ নিয়োগ দিচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

ইংল্যান্ডের প্রথম শ্রেণির সাবেক ক্রিকেটার এবং ২০১৯ বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কা দলের ব্যাটিং পরামর্শক হিসাবে দায়িত্ব পালন করা জন লুইসই হতে যাচ্ছেন টাইগারদের পরবর্তী ব্যাটিং কোচ। জন লুইস দীর্ঘ দিন কাউন্টি দল ডারহামের হেড কোচ ও  সাসেক্সের সহকারী কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন। ইংল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হেড কোচও ছিলেন তিনি।

টাইগারদের প্রধাণ কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর চাওয়া তার সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে কাজ করবেন এমন একজন ব্যাটিং কোচ। ডোমিঙ্গোর সঙ্গে ভালো যোগাযোগ আছে জন লুইসের। সেই সূত্র ধরেই জাতীয় দলের কোচিং স্টাফে সম্পৃক্ত করা হচ্ছে তাকে। লুইসকে বিশ্বকাপের পরিকল্পনায় রেখে নিয়োগের সুপারিশ করেছেন রাসেল ডমিঙ্গো।

তবে জন লুইসকে চূড়ান্ত করলেও এখনো আনুষ্ঠানিক ভাবে কিছু জানানো হয়নি বিসিবির পক্ষ থেকে। আগামী দুই এক দিনের ভিতর ঘোষণা করা হবে ব্যাটিং কোচের নাম। ডারহাম ও সাসেক্সের হয়ে ২০৫টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে ১৬ সেঞ্চুরিতে ১০ হাজার ৮২১ রান করা লুইসকে আপাদত ২ টি সিরিজের জন্য দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে।

বঙ্গবন্ধু টি-টুয়েন্টি কাপের পর থেকেই বিশ্রামে রয়েছে ক্রিকেটাররা। ১০ জানুয়ারি শুরু হবে বাংলাদেশ দলের অনুশীলন। অনুশীলন শুরুর আগেই হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো সহ অন্য বিদেশী কোচরা ঢাকায় চলে আসবেন। এর আগেই প্রাথমিক দল ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছিলেন প্রধাণ নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। প্রাথমিক দল ঘোষণার পরে ১৪ ও ১৬ জানুয়ারি ক্রিকেটাররা নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে দুটি এক দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবেন।  এরপরই তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য চূড়ান্ত দল ঘোষণা করবেন নির্বাচকেরা।

২০ জানুয়ারি ১ম ওয়ানডে দিয়ে শুরু হবে সিরিজ। ২২ জানুয়ারি ২য় ওয়ানডে ও ২৫ জানুয়ারি ৩য় ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে। প্রথম দুই ম্যাচ হোম অফ ক্রিকেট শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ও শেষ ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে জহুর আহম্মেদ চৌধুরি স্টেডিয়াম, চট্টগ্রামে। সিরিজের সব গুলো ম্যাচই শুরু হবে দুপুর দুইটায়। ওয়ানডে সিরিজ শেষে ৩ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামে ১ম টেস্ট ও ১১ ফেব্রুয়ারি মিরপুরে ২য় টেস্ট শুরু হবে।

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...