ক্রিকেট অচল নিউইয়র্কের উইকেট!

বিশ্বকাপের ম্যাচে নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পিচের অবস্থার তীব্র সমালোচনা প্রকাশ করেছেন তিনি। ম্যাচে ভাল লেন্থের বলগুলি অপ্রত্যাশিতভাবে বাউন্স করছিল পিচে। যা উভয় দলের খেলোয়াড়দের জন্য বেশ ঝুকিপূর্ণ।

নিউইয়র্কের পিচ নিয়ে প্রস্তুতি ম্যাচ থেকেই ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মধ্যে চলছিল তীব্র আলোচনা-সমালোচনা। এবার সেখানে যোগ হলেন সাবেক ভারতীয় অলরাউন্ডার ইরফান পাঠান। বুধবার ভারত ও আয়ারল্যান্ডের মধ্যে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়ামের পিচের অবস্থা ছিল নাজেহাল।

তাইতো তীব্র সমালোচনা প্রকাশ করেছেন ইরফান। ম্যাচে ভাল লেন্থের বলগুলি অপ্রত্যাশিতভাবে বাউন্স করছিল পিচে। আবার হুটহাট প্রত্যাশার চাইতে নিচু হয়ে যাচ্ছিল। যা উভয় দলের খেলোয়াড়দের জন্য বেশ ঝুকিপূর্ণ।

পিচের এমন নিম্নমান পাঠান মেনে নিতে পারছেন না। ভারতে এধরণের পরিস্থিতি অগ্রহণযোগ্য এবং এমন হলে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত সেই ভেন্যু স্থগিত করা হত বলে জানান তিনি।

স্টার স্পোর্টসে পাঠান বলেন, ‘দেখুন, আমরা অবশ্যই যুক্তরাষ্ট্রে ক্রিকেটের প্রচার করতে চাই কিন্তু এই পিচ খেলোয়াড়দের জন্য নিরাপদ নয়। আমাদের ভারতে যদি এমন একটি পিচ থাকত, তাহলে সেখানে আর কখনোই দীর্ঘ সময় ধরে ম্যাচ খেলা হত না। এই পিচ অবশ্যই ভাল না। আমরা এখানে বিশ্বকাপ নিয়ে কথা বলছি, এমনকি দ্বিপাক্ষিক সিরিজও নয়।’

ম্যাচে ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মাকে ইনিংস শেষ না করেই মাঠের বাহিরে যেতে হয়েছিল। কারণ ভাল লেন্থের একটি বল অপ্রত্যাশিতভাবে বাউন্স হয়ে তার হাতে লাগে। ব্যাট করার সময় ঋষাভ পান্তও অস্বস্তি বোধ করেছিল যখন একটি বল অসমভাবে বাউন্স করে ও তার কনুইয়ে লাগে।

ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাঠানের এমন বক্তব্যে সহমত প্রকাশ করে বলেন, ‘রাজ্যগুলিতে খেলা প্রচার করার চেষ্টা দুর্দান্ত, এটি পছন্দ হয়েছে। তবে খেলোয়াড়দের নিউইয়র্কের এই ক্ষতিকারক পিচে খেলতে হবে তা অগ্রহণযোগ্য। আপনি কঠোর পরিশ্রম করে বিশ্বকাপে জায়গা করে নেন। এবং তারপর আপনাকে এখানে খেলতে হয়!’

আরেক সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটের ওয়াসিম জাফর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পিচ সম্পর্কে ব্যঙ্গাত্মকভাবে বলেন, ‘ নিউইয়োর্কের পিচটি চমৎকার । যুক্তরাষ্ট্রের দর্শকদের টি-টোয়েন্টির ছদ্মবেশে টেস্ট ক্রিকেটে আকৃষ্ট করার ধারণাটি ভাল।’

বিশ্বকাপে এমন খারাপ পিচ এবং ধীরগতির আউটফিল্ড প্রধান আলোচনার বিষয় হয়ে উঠেছে। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মতো শীর্ষ স্তরের আইসিসি ইভেন্টে খেলোয়াড়দের নিরাপত্তা এবং ক্রিকেটের মান নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সবাই।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...