চাকরি দিয়ে আফ্রিদির মুখ বন্ধ করছে পিসিবি

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী তাঁকে পিসিবির কোন ভূমিকায় দেখতে চান, এমনটা জানিয়েছেন এই অলরাউন্ডার।

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডে (পিসিবি) অস্থিতিশীলতার শেষই হচ্ছে না। নানাবিধ বিতর্কে জড়িয়ে সমালোচিত হচ্ছেন ক্রিকেট কর্তারা; সাবেক ক্রিকেটারদের তোপের মুখেও পড়তে হচ্ছে তাঁদের। শহীদ আফ্রিদির মত কিংবদন্তি তারকাও সম্প্রতি পিসিবি প্রধান জাকা আশরাফের কড়া সমালোচনা করেন এবং তাঁকে নিজের কাজ নিয়ে মনোযোগী হতে বলেন।

তবে সেটার রেশ কাটতে না কাটতেই পিসিবি চেয়ারম্যানের সঙ্গে সভা করেছেন আফ্রিদি। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে এই দুইজন দেশের ক্রিকেটের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা করেন। অবশ্য এর আগে পাকিস্তানের ভারপ্রান্ত প্রধানমন্ত্রী আনওয়ার উল হক কাকরের সঙ্গে দেখা করেছিলেন সাবেক এই অলরাউন্ডার।

এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে কল পেয়ে ইসলামাবাদ গিয়েছি। ক্রিকেটের বিভিন্ন বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা বলা সত্যিই আনন্দের ছিল। তিনি তরুণদের যথাযথ প্রশিক্ষণের ব্যাপারে আগ্রহী ছিলেন যাতে তাঁরা আন্তর্জাতিক পর্যায়ের জন্য তৈরি হতে পারে।’

আফ্রিদি আরো যোগ করেন, ‘পাকিস্তান ক্রিকেটের জন্য যা প্রয়োজন তা হলো, তৃণমূল থেকে শীর্ষ স্তর পর্যন্ত খেলোয়াড়দের উন্নতমানের প্রশিক্ষণ। এখন তা ঘটছে না যার ফলস্বরূপ আমরা তরুণ প্রতিভাকে গড়ে তুলতে এবং তাঁদের বিশ্ব সেরা হওয়ার পথে সাহায্য করতে ব্যর্থ হচ্ছি।’

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী তাঁকে পিসিবির কোন ভূমিকায় দেখতে চান, এমনটা জানিয়েছেন এই ডানহাতি। যদিও তাৎক্ষণিক কোন সিদ্ধান্ত নেননি তিনি, ভেবে দেখার জন্য কিছু সময় চেয়ে নিয়েছেন। তাহলে কি চাকরির বিনিময়ে মুখ বন্ধ করতে যাচ্ছেন সাবেক এই পাকিস্তানি অধিনায়ক?

অন্যদিকে জাকা আশরাফের সঙ্গে শহীদ আফ্রিদি ঠিক কি কি ব্যাপারে মত বিনিময় করেছেন সেটা পুরোপুরি প্রকাশ করা হয়নি। তবে জানা গিয়েছে, ক্রিকেটার হিসেবে আফ্রিদির অবদানের প্রশংসা করেছেন বোর্ড প্রধান। এই ক্রীড়াসংগঠক আরো বলেছেন, ‘আমরা আপনাকে পাকিস্তান নায়ক মনে করি। দেশের ক্রিকেটের শুভাকাঙ্খী হিসেবে পিসিবি আপনার অভিজ্ঞতা ক্রিকেটের উন্নয়নে ব্যবহার করতে আগ্রহী।’

কয়েকদিন আগে অবশ্য তাঁর কর্মকাণ্ডে বিরক্ত হয়ে গিয়েছিলেন ‘বুম বুম’ আফ্রিদি। একটি টিভি শো-তে প্রাক্তন এই লেগস্পিনার বলেছিলেন যে, ‘জাকা আশরাফ কোন ক্লাব চালাচ্ছে না। সে পিসিবির চেয়ারম্যান, এটা মাথায় রাখা উচিত। আল্লাহর দোহাই, নিজের কাজে মনোযোগ দাও। তাঁরা (গণমাধ্যম) সমালোচনা করছে কারণ সুযোগ পাচ্ছে।’

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...