এভাবে আর কতদিন চলবেন মুস্তাফিজ?

কিছুতেই কিছু হচ্ছে না, লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগের (এলপিএল) তুলনামূলক স্পোর্টিং উইকেটে নিজেকে হারিয়ে খুঁজছেন মুস্তাফিজুর রহমান।

কিছুতেই কিছু হচ্ছে না, লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগের (এলপিএল) তুলনামূলক স্পোর্টিং উইকেটে নিজেকে হারিয়ে খুঁজছেন মুস্তাফিজুর রহমান। এতদিন অবশ্য ভাল করতে না পারলেও খারাপ করেননি। তবে কলম্বো স্ট্রাইকার্সের বিপক্ষে পুরোপুরি হতাশ করেছেন তিনি। পুরো ইনিংস জুড়ে তাঁর কাছ থেকে কেবল এলোমেলো বোলিং দেখা গিয়েছে।

বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে দুর্দান্ত ছন্দে ছিলেন এই পেসার, কিন্তু সুপার এইটে ভারত আর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নখদন্তহীন পারফরম্যান্স করেছিলেন তিনি। সেই ধারা ধরে রেখেছেন চলতি এলপিএলেও।

কলম্বোর বিপক্ষে এদিন চার ওভার বোলিং করে ৫৩ রান দিয়েছেন এই বাঁ-হাতি, অথচ উইকেট পাননি একটিও। ডেথ ওভারে দু’হাতে রান বিলিয়েছেন তিনি; লোয়ার অর্ডার ব্যাটার চামিকা করুণারত্নেও ছাড় দেয়নি তাঁকে। পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ইনিংসের সবচেয়ে বাজে বোলারের ট্যাগটা তাঁর কপালেই জুটেছে।

আগের ম্যাচের মতই পাওয়ার প্লেতে মুস্তাফিজকে ব্যবহার করেছিলেন ডাম্বুলার অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী; প্রত্যাশা ছিল আরো একবার টপ অর্ডারের উইকেট এনে দিবেন। কিন্তু এবার আর সেটা হয়নি, শুরুর স্পেলে দুই ওভার বল করে ১৬ রান খরচ করেছেন তিনি ঠিকই কিন্তু কোন উইকেট তুলতে পারেননি।

তবু সেটা বলার মত ছিল, কিন্তু ডেথ ওভারে আক্রমণে এসে একেবারে হতাশ করেছেন কাটার মাস্টার। ব্যক্তিগত তৃতীয় ওভারে ১৭ রান খরচ করে বসেছিলেন তিনি, এর মধ্যে আবার পাঁচ রান দিয়েছেন অতিরিক্ত। নিজের শেষ ওভারেও হতাশার চিত্র বদলায়নি, গ্লেন ফিলিপ্সের হাতে বেধড়ক পিটুনি খেয়েছেন তিনি। তাতেই তাঁর লজ্জার হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ হয়।

অন্যতম স্ট্রাইক বোলারের এমন ফর্ম দেখাটা যেকোনো বাংলাদেশী সমর্থকদের জন্য অস্বস্তির ব্যাপার। তবু টাইগার তারকার উন্নতির কোন চেষ্টা চোখে পড়ছে না, নিজের মতই আছেন তিনি। এভাবে আর কতদিন চলবে সেটাই এখন প্রশ্ন?

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...