বিগ থিঙ, বিগ ড্রিম

একটা গোটা দশক পার হয়ে গেছে। এই দশকে আমরা দেখেছি নতুন নতুন ক্রিকেট কুশীলব, ক্রিকেট রেকর্ডের খেরোখাতায় নতুন নতুন নাম। তবে আগামী দশকটাও ক্রিকেটপ্রেমীদের নিরাশ করবেনা। এমন একঝাঁক ক্রিকেটার আছেন যারা কিনা নিজ ক্রিকেটগুণে আগামী দশকটা নিজেদের করে নিতে পারেন, নিজেদের নিয়ে যেতে পারেন পরবর্তী ধাপে।

একটা গোটা দশক পার হয়ে গেছে। এই দশকে আমরা দেখেছি নতুন নতুন ক্রিকেট কুশীলব, ক্রিকেট রেকর্ডের খেরোখাতায় নতুন নতুন নাম। তবে আগামী দশকটাও ক্রিকেটপ্রেমীদের নিরাশ করবেনা। এমন একঝাঁক ক্রিকেটার আছেন যারা কিনা নিজ ক্রিকেটগুণে আগামী দশকটা নিজেদের করে নিতে পারেন, নিজেদের নিয়ে যেতে পারেন পরবর্তী ধাপে।

কিছু কিছু ক্রিকেটার তাঁদের মধ্যে ইতোমধ্যেই তারকা বনে গেছেন। তবে, তাঁদের সামনে সুযোগ আছে নিজেদের ছাড়িয়ে যাওয়ার। সেই রকম কিছু ক্রিকেটারের গল্পই বলব আজ।

  • লোকেশ রাহুল

লোকেশ রাহুলের প্রতিভা নিয়ে কারো কোন সন্দেহ থাকার কথা নয়। ভারতীয় ক্রিকেটকর্তা থেকে শুরু করে ক্রিকেটবিশেষজ্ঞ সবাই বলেছেন রাহুল বিশেষ কিছুই। তবে দীর্ঘদিনই মহেন্দ্র সিং ধোনির ছায়াতে আড়ালে থাকলেও ২০২০ এর শুরু থেকে ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি এই দুই ফরম্যাটে গ্লাভস হাতে নিয়মিতই খেলতে শুরু করেছেন তিনি।

সাদা বলের ক্রিকেটে গেল নিউজিল্যান্ড সফরেই তিনি দারুণ পারফর্ম করেছেন। রাহুল যদি নিজের ধারা অব্যাহত রাখতে পারেন তাহলে আগামীর দশকটা নিজের রঙেই রাঙাতে পারবেন। চাইলে তাঁর ওপর ভরসা রাখতেই পারে ভারতীয় ক্রিকেট।

  • শুভমান গিল

ভারতীয় ক্রিকেটে সবসময়ই কেউ না কেউ থাকবেন যার ব্যাটিংলাইনআপে নেতৃত্ব দেওয়ার কথা থাকবে। শচীন, কোহলি পেরিয়ে এবার সেটা শুভমন গিল বলেই অনুমান করছে সবাই। ২১ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান এখনই নজর কাড়তে শুরু করেছেন সবার।

ব্যাকফুটে তাঁর যে দৃঢ়তা তা রীতিমত চোখে লাগার মত। নিজের দিনে প্রতিপক্ষ দলের বোলিং লাইনআপকে শাসন করে ছাড়েন তিনি। আগামী দশকে শুভমনের ওপর একটা বিশেষ নজর তাই রাখতেই হবে।

  • বেন স্টোকস

বেন স্টোকস অবশ্য গত দশকটাতেই নিজের নাম ফুটিয়েছেন স্বমহিমায়। বিশ্বকাপের সেই ক্লাসিক, অ্যাশেজের সেই দুরন্ত ফর্ম- বেন স্টোকস তাকে মনে রাখার মত উপলক্ষ্য এনে দিয়েছেন বেধ অনেকবার। তবে সামনের এই দশকে তিনি ছাড়িয়ে যেতে পারেন নিজের এই দশককেও।

পারফরম্যান্সের রঙে রাঙাতে পারেন গোটা ক্রিকেটটাকেই। এমনিতেই শেন ওয়াটসন, জ্যাক ক্যালিসের অবসরের পর সাকিব আল হাসানকে চ্যালেঞ্জ জানানোর মত অলরাউন্ডার ছিল না বেশ কিছুদিন, বেন স্টোকস সেখানে সাকিবকে ছাড়িয়েও যেতে শুরু করেছেন। বাকিটা এই দশকেই দেখা যাবে।

  • বাবর আজম

বাবর আজমকে ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই তুলনা দেওয়া হয় বিরাট কোহলির সাথে। বাবর অবশ্য এই তুলনা বারবার বিনয়ের সাথেই উপেক্ষা করেছেন। তবে, টি-টোয়েন্টিতে ইতোমধ্যেই তিনি যা করেছেন তাতেই বাবর আজমকে বিশেষ কিছু ভাবতে বাধ্য হচ্ছে সবাই।

কোহলির মতই ইতোমধ্যেই দলের অধিনায়কত্ব পেয়েছেন তিনি। টেস্ট আর ওয়ানডেতে অবশ্য টি-টোয়েন্টির মত পারফর্ম করতে পারছেন না তিনি। তবে তাতে কি, অসীম প্রতিভা দিয়ে গোটা একটা দশক তিনি নিজের করে নেওয়ার ক্ষমতা রাখেন। কোহলি-রুট-স্মিথের পরের যুগে বাবর হতে পারেন ব্যাটিং এর নিখাদ শিল্প!

  • জাসপ্রিত বুমরাহ

ভারতীয় দলের বোলিং লাইনআপ দীর্ঘদিনই ছিল স্পিন বোলিং ঘরানার। জহির খানের পর সেরকম সব ফরম্যাটে ছড়ি ঘোরানোর মত বোলারও পাওয়া যাচ্ছিল। মোহাম্মদ শামিও ইনজুরির কারণে ছিলেন আসা-যাওয়ার মধ্যে। জাসপ্রিত বুমরাহ সেখানে ভারতীয় দলে আশার বাতিঘরই বলা যায়।

সাদা বলের ক্রিকেট শুরুর সময়ই নিজের বৈচিত্র‍্যময় বোলিং অ্যাকশনের কারণে আলোচনায় আসেন তিনি। তবে বুমরা নিজের সত্যিকারের জাত চেনানো শুরু করেন লাল বলের ক্রিকেটে । বামহাতি-ডানহাতি দুই ব্যাটসম্যানের জন্যেই উইকেটের দুই দিকে সুইং করাতে পারেন তিনি। নিজের পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলে অচিরেই অনন্য সব রেকর্ডে থাকবে জসপ্রীত বুমরার নাম, সাথে গোটা দশকের বোলিং আইকনও হবেন তিনি।

  • লিটন দাস

লিটন কুমার দাসকে নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বরাবরই বড় স্বপ্ন দেখে আসছে। তবে যে স্বপ্ন নিয়ে তাকে ক্রিজে পাঠানো হয়েছিল, ক্যারিয়ারের শুরুতে তার কিছুই তিনি পূরণ করতে পারেননি। কিন্তু এশিয়া কাপ-২০১৮ এর পর দৃশ্যপট বদলে যায়। এক সেঞ্চুরিতেই নিজের জাত চেনান তিনি।

এরপরও যে ঠিক নিয়মিত হয়ে ওঠেন লিটন, এমনটা বলা যাবেনা। তবে নিজের খেলাতে তিনি কিছুটা পরিবর্তন এনেছেন, সহজাত স্ট্রোক খেলাতে রাশ টেনেছেন। আর তাতে সাফল্যও পেতে শুরু করেছেন। এতে করে এই দশকে নিজেকে অনন্য একটা উচ্চতায় তিনি নিয়ে যেতেই পারেন।

আরও পড়ুন

Leave A Reply

Your email address will not be published.