ঋণের দায়ে পাকিস্তানের টানা পরাজয়

কিন্তু পাকিস্তানি কবি এবং ব্যঙ্গশিল্পী আনোয়ার মাকসুদ এর একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন, যা একটি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ঋণের সাথে সম্পর্কিত।

বিশ্বকাপের অন্যতম আলোচ্য বিষয়ে পরিণত হয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট দল। নবীন যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে পরাজয় মেনে নিতে পারছে না পাকিস্তান ক্রিকেট ভক্তরা। এমন ফলাফল হতবাক করেছে ক্রিকেট বিশ্বকে। কিন্তু পাকিস্তানি কবি এবং ব্যঙ্গশিল্পী আনোয়ার মাকসুদ এর একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন, যা একটি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ঋণের সাথে সম্পর্কিত।

যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে পরাজয়ের সম্পর্কে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘তারা হারতে বাধ্য হয়েছিল। একটি আইএমএফ-মঞ্জুরি ঋণ বকেয়া আছে। আমরা তার অনুদান পাইনি। তাই এটা একটা শর্তও হতে পারে, আমেরিকার কাছে হার, তারপর টাকা দেব। এছাড়া আমি অন্য কোনো কারণ ভাবতে পারছি না।;

মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আনোয়ার মাকসুদ সম্ভবত ৮ বিলিয়ন ডলার আইএমএফ ঋণের কথা উল্লেখ করেছিলেন যা পাকিস্তান তার বর্ধিত তহবিল সুবিধা কর্মসূচির অধীনে চাইছে। বর্তমানে দেশটির জাতিসংঘ সংস্থার কাছে ১.১ বিলিয়ন ডলার ঋণ রয়েছে। ২০২৪ সালের এপ্রিল মাসে একটি ঋণ কর্মসূচি শেষ হয়েছে, যখন এটি ৯ মাসের স্ট্যান্ড-বাই ব্যবস্থার অংশ হিসেবে চূড়ান্ত কিস্তি পেয়েছে।

মাকসুদ ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের বিষয়ে মজা করে বলেন, ‘যেসব পাকিস্তানি ম্যাচের টিকিট কিনেছে আমার মনে হয় তারা অর্ধেক দামে টিকিট বিক্রি করে দিবে।’

তিনি ব্যাঙ্গাত্মক ভঙ্গিমায় সে কথা বললেও, আখেরে নিউ ইয়র্কে তেমন চিত্রই দেখা গেছে। নাসাউ কাউন্টি ক্রিকেট স্টেডিয়াম ছেয়ে গিয়েছিল নীল রঙে। শেষ অবধি ভারতের কাছেও পরাজিত হয়েছে পাকিস্তান দল।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...