আফ্রিদি বনাম অবশিষ্ট বিশ্ব!

কোনপ্রকার ট্রেনিং সেশন বাদেই মাঠে নামলেন আফ্রিদি। কি করলেন জানেন? মাত্র ২৩ বলে করলেন ৫৮ রান। মাতালেন মাঠ, কাঁপালেন সমালোচকদের। হারালেন কোভিড ১৯-এর শঙ্কা, আকাশ ভ্রমণের বিধি-নিষেধ, কোয়ারেন্টাইন ও বোলারদের তো অবশ্যই। এখানেই শেষ নয়, ‘স্বরুপে’ও ফিরেছেন তিনি। আফ্রিদি একটা টুর্নামেন্ট খেলবেন, আর সেখানে ডাক মারবেন না - তা কি হয় নাকি। নিজের নামের প্রতি এতটা অবিচার তিনি করেননি।

ধরে নিন, আপনি একজন পেশাদার ক্রিকেটার। ক’দিন বাদে আপনার দল মাঠে নামবে। এজন্য আপনাকে উড়াল দিতে হবে ভিনদেশে। ফ্লাইট ঠিকঠাক। দিনক্ষণ ঘনিয়ে এলো। উড়োজাহাজ আকাশে উড়লো নির্ধারিত সময়েই, কিন্তু আপনাকে রেখে।

কেন? কারণ আর কিছু না, আপনি ফ্লাইট মিস করে ফেলেছেন। সঠিক সময়ে বাসা থেকে বেরই হতে পারেননি। ফলে বন্ধ হয়ে গেলো দুটো ম্যাচ খেলার সম্ভাবনা। মহামারীর জন্য ঘরবন্দী থাকতে গেলে মাঠে আর নামা হবে না। এমনটি হলে সমালোচনার পাশাপাশি শৃঙ্খলাজনিত কারণে শাস্তির খড়গ নামার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয়া যায় না।

কল্পিত যে ঘটনার অবতারণা করা তা লিখতে আসলে কোনো কল্পনার আশ্রয় নিতে হয়নি। বিশ্বাস করুন আর নাই করুন, ঘটনাটা বাস্তবেই ঘটেছে। ঘটিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ও অধিনায়ক শহীদ খান আফ্রিদি। আফ্রিদি বলেই ঘটনার জের ধরে কিছু ঘটেনি। বরং যা এরপর ঘটেছে তা আফ্রিদির সাথেই সবচেয়ে বেশি মানায়।

এবার, খুলে বলা যাক। গত ২৩ নভেম্বর শ্রীলঙ্কা আসার কথা আফ্রিদির। কারণ তিনি লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগে (এলপিএল) গল গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে খেলবেন। অধিনায়কের দায়িত্বে আছেন। সরফরাজ আহমেদ ও লাসিথ মালিঙ্গাকে না পেয়ে আফ্রিদিকে বদলি অধিনায়ক বানিয়েছে দলটি। শ্রীলঙ্কায় যাবার নির্ধারিত ফ্লাইট মিস করলেন তিনি। ধরে নেয়া হল প্রথম দুটো ম্যাচ খেলতে পারবেন না তিনি। আফ্রিদি থেমে যাওয়ার পাত্র নন। পরদিন তিনি ধরলেন আরেকটি ফ্লাইট।

ম্যাচের দিন জানা গেলো আফ্রিদির কোয়ারেন্টাইনের সময় ফুরিয়েছে নির্ধারিত সময়ের চার দিন আগে। কারণ তিনি ইতোপূর্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন। তাই তার শরীরে তৈরী হয়েছে এন্টিবডি। যার কারণে ধরে নেওয়া হয়েছে তাঁর মাধ্যমে করোনা ভাইরাস ছড়ানোর সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

কোনপ্রকার ট্রেনিং সেশন বাদেই মাঠে নামলেন আফ্রিদি। কি করলেন জানেন? মাত্র ২৩ বলে করলেন ৫৮ রান। মাতালেন মাঠ, কাঁপালেন সমালোচকদের। হারালেন কোভিড ১৯-এর শঙ্কা, আকাশ ভ্রমণের বিধি-নিষেধ, কোয়ারেন্টাইন ও বোলারদের তো অবশ্যই।

এখানেই শেষ নয়, ‘স্বরুপে’ও ফিরেছেন তিনি। আফ্রিদি একটা টুর্নামেন্ট খেলবেন, আর সেখানে ডাক মারবেন না – তা কি হয় নাকি। নিজের নামের প্রতি এতটা অবিচার তিনি করেননি।

অবশ্য এলপিএলে আফ্রিদি শো দীর্ঘায়িত হয়নি। তাঁকে জরুরী ভিত্তিতে দেশে ফিরতে হয়েছে। হাসপাতালে ভর্তি অসুস্থ মেয়ের পাশে থাকতেই আফ্রিদির ছুটে যাওয়া। লিগের মাঝপথে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার সাপেক্ষে তিনি ফিরবেন বলে জানিয়েছে বিভিন্ন সূত্র। এবার না হয়, তার অপেক্ষা করা যাক। আশা থাকবে, এবার অন্তত ফ্লাইট মিস করবেন না তিনি।

আরও পড়ুন

Leave A Reply

Your email address will not be published.