ভারত এখন ‘অজেয়’

ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ জিততে মরিয়া হয়ে আছে ভারত; ক্রিকেটারদের কাছে তাই প্রত্যাশাও ছিল আকাশচুম্বী। তবে এবারের আসরে এতটা আধিপত্য দেখাবেন তাঁরা, সেটা বোধহয় কোন দর্শক ভাবতে পারেনি।

ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ জিততে মরিয়া হয়ে আছে ভারত; ক্রিকেটারদের কাছে তাই প্রত্যাশাও ছিল আকাশচুম্বী। তবে এবারের আসরে এতটা আধিপত্য দেখাবেন তাঁরা, সেটা বোধহয় কোন দর্শক ভাবতে পারেনি। রীতিমতো অজেয় হয়ে উঠেছে রোহিত শর্মার দল; এখন পর্যন্ত ছয় ম্যাচ খেলে ছয়টিতেই বড় জয় পেয়েছে।

তাই তো শেন ওয়াটসন মনে করেন ভারতীয় দল ২০০৩ আর ’০৭ সালের অস্ট্রেলিয়ার মতই অপ্রতিরোধ্য। একটি সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘এদের বলার মত কোন দুর্বলতাই নেই, ঠিক যেমন ২০০৩ বা ‘০৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার ছিল না। এই দলের প্রায় সবাই ম্যাচ উইনার; দুই ম্যাচ পরেই আমার মাঝে এই ভাবনা এসেছিল। তাঁরা অবিশ্বাস্য পারফর্ম করছে এবং টুর্নামেন্ট জুড়ে অপরাজিত থাকার দারুণ সম্ভাবনা রয়েছে।’

বিরাট কোহলির দুর্দান্ত ফর্ম নিয়েও মন্তব্য করেছেন এই অজি অলরাউন্ডার। তাঁর চোখে, সাদা বলে চেজ করার ক্ষেত্রে বিরাটই সবচেয়ে সেরা। তিনি বলেন, সে (কোহলি) সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ চেজার। মোহালিতে আমাদের বিরুদ্ধে তার সেই ইনিংস আমার এখনও মনে আছে – এতটাই বিধ্বংসী ছিল যে, তাঁকে থামানোর উপায় ছিল না।’

কেন রান তাড়ার সময় এই ব্যাটার অনন্য সেটাও ব্যাখ্যা করেছেন ওয়াটসন। তিনি বলেন, ‘কিশোর বয়সে তাঁর কোচের অধীনে ক্যালকুলেটিভ ক্রিকেট অনুশীলন করার বিষয়টি তাকে এই ব্যাপারে সাহায্য করেছে। সে শুধু হিসেব করে আর সেই অনুযায়ী খেলতে থাকে।’

এমনকি এই কারণে শচীন টেন্ডুলকারের চেয়েও কোহলিকে এগিয়ে রাখছেন এই কিংবদন্তি তারকা। তিনি বলেন, ‘শচীন অবশ্যই ভাল ছিল, কিন্তু বিরাট দ্বিতীয় ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছে এমন ম্যাচে ভারতের জয়ের হার বেশি। আবার রান তাড়ার সময় তাঁর গড় পূর্বসূরির চেয়ে অনেক বেশি। হয়তো সতীর্থদের ব্যর্থতায় শচীনের জয়ের শতাংশ কম, কিন্তু কোহলি যা করছে সেটা বলতে গেলে অলৌকিক।’

এছাড়া মোহাম্মদ শামি, রাচিন রবীন্দ্রদের নিয়েও কথা বলেছেন অজি পেসার। তাঁর মতে, হার্দিক পান্ডিয়া ফিরলেও মোহাম্মদ শামিকে একাদশে রাখা উচিত; কেননা শামি ভারতের বোলিং লাইনআপকে আরো বেশি বৈচিত্র্যময় করে তোলে। অন্যদিকে কিউই অলরাউন্ডার রবীন্দ্র সবচেয়ে মুগ্ধ করেছে তাঁকে, এমনটাই জানিয়েছেন তিনি।

ভারতকে এগিয়ে রাখলেও নিজের দেশকে একেবারে পিছিয়ে রাখছেন না সাবেক এই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার। তিনি বলেন, ‘ভারতকে কেউ চ্যালেঞ্জ জানাতে পারলে সেটা হবে অস্ট্রেলিয়া। স্কোয়াডে বিশ্বকাপ ফাইনাল খেলা, ট্রফি জেতা ক্রিকেটাররা আছে; যা অজিদের যোগ্য প্রতিদ্বন্দ্বী করে তুলেছে। তবে এবার ভারত বাধা ডিঙাতে হলে তাঁদের সেরাটা দিতে হবে।’

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...