নিয়ম ভেঙেছেন কোহলি

‘কেউ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে ভারতীয় বোর্ডকে ভিন্ন পথে নেয়ার চেষ্টা করছে। যারা দেশের সেবা করছেন, তাদের ব্যক্তিগত স্বার্থের জন্য এমনটা করছে। এর পেছনে অন্য কোন উদ্দেশ্য আছে। আমরা সকল বিষয় খতিয়ে দেখবো।’

শুরুর কিছু ভুর বাদ দিলে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি এখন মোটামুটি ‘ক্লিন ইমেজ’-এর অধিকারী। যদিও, এর মধ্যেও তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলো। বোর্ড অব কনট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়ার (বিসিসিআই) কাছে কনফ্লিক্ট অব ইনটারেস্ট বিষয়ক অভিযোগ তুলেছে দেশটির মধ্যপ্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের আজীবন সদস্য সঞ্জীব গুপ্তা।

ভারতের সুপ্রিম কোর্ট কর্তৃক নিয়োগকৃত লোধা কমিশনের সুপারিশ অনুসারে বিসিসিআই’র সাথে চুক্তিভুক্ত কেউ অন্য কোনো লাভজনক সংস্থার সাথে জড়িত থাকতে পারবেন না। কিন্তু বিসিসিআই’র প্রচলিত নিয়ম ভেঙেছেন কোহলি। তাই কোহলির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন গুপ্তা।

আর সেই অভিযোগপত্র ইতোমধ্যে বিসিসিআই’র এথিকস কর্মকর্তা অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি ডি কে জৈনের কাছে কাছে পৌঁছে গেছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে, বড় ধরনের শাস্তির মুখোমুখি হতে পারে কোহলির।

ডি কে জৈন বলেন, ‘হ্যাঁ, আমরা কোহলির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র পেয়েছি। আমরা এই বিষয়ে খোঁজ নেওয়া শুরু করেছি। আমরা এটা পরীক্ষা করে ভেবে দেখবো কি করা উচিত। যদি আমরা এর সত্যতা খুঁজে পাই, তবে কোহলির কাছে এই বিষয়ে জানতে চাওয়া হবে। আর তাকে উত্তর জানানোর সুযোগ দেওয়া হবে। সবার জন্য যে নিয়ম প্রযোজ্য, তার জন্যও একই নিয়ম থাকবে।’

অভিযোগ পত্রে কোহলির বিরুদ্ধে গুপ্তা লিখেছেন, ‘কোহলি একই সাথে দু’টি পোস্ট অধিকার করে রেখেছেন। যা বিসিসআইয়ের ধারা ৩৮ (৪) এর সম্পূর্ণ বিপরীত। এই ধারাটি অনুমোদন দিয়েছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট।’

তবে বিসিসিআই’র এক কর্মকর্তা বলছেন ভিন্ন কথা। তিনি বলেন, ‘কেউ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে ভারতীয় বোর্ডকে ভিন্ন পথে নেয়ার চেষ্টা করছে। যারা দেশের সেবা করছেন, তাদের ব্যক্তিগত স্বার্থের জন্য এমনটা করছে। এর পেছনে অন্য কোন উদ্দেশ্য আছে। আমরা সকল বিষয় খতিয়ে দেখবো।’

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...