মুশতাক আলী ট্রফি থেকে আইপিএলের দুয়ারে

আইপিএলে আমরা যে নতুন নতুন খেলোয়াড় দেখি, তা ঐ মুশতাক আলী ট্রফির কল্যাণেই। মুশতাক আলী ট্রফি হল আইপিএলের পাইপলাইন। তা সেই ট্রফি দিয়ে এবারও আইপিএলে দল পেতে পারেন বেশ কজন খেলোয়াড়। আজ তাঁদের গল্প হোক।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) এর পর ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় বিশ ওভারের টুর্নামেন্ট সৈয়দ মুশতাক আলী ট্রফি। আইপিএলের দলগুলো নিলামের আগে এই টুর্নামেন্টে চোখ রাখে নতুন নতুন খেলোয়াড় দলে নিতে।

আরো পড়ুন

আইপিএলে আমরা যে নতুন নতুন খেলোয়াড় দেখি, তা ঐ মুশতাক আলী ট্রফির কল্যাণেই। মুশতাক আলী ট্রফি হল আইপিএলের পাইপলাইন। তা সেই ট্রফি দিয়ে এবারও আইপিএলে দল পেতে পারেন বেশ কজন খেলোয়াড়। আজ তাঁদের গল্প হোক।

  • বিষ্ণু সোলাঙ্কি

২৮ বছর বয়সী বিষ্ণু মুশতাক আলী ট্রফিতে খেলেছেন বরোদার হয়ে। মূলত বরোদাকে সেমিফাইনালে নিয়ে ম্যাচের ৪৬ বলে ৭১ রানের অপরাজিত ইনিংসটাই বিষ্ণুকে সবার কাছে পরিচিত করে দিয়েছে।

এছাড়া এই টুর্নামেন্টের পঞ্চম সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি, ৮ ম্যাচে করেছেন ২৬৭ রান। চেন্নাই, মুম্বাইয়ের দলগুলো, যাদের টপ অর্ডারে অতিরিক্ত সংযোজন দরকার তাঁরা বিষ্ণুকে দলে নিতেই পারে।

  • জলজ সাক্সেনা

কেরালার জলজ সাক্সেনা মূলত একজন অলরাউন্ডার। বয়সটা ৩৪ হয়ে গেলেও লোয়ার অর্ডারে ঢের ভাল ব্যাট চালাতে পারেন তিনি। আর বল হাতে? তাতে তো আরো বেশি নিয়মিত। এই মুশতাক আলী ট্রফিতেই তিনি পাঁচ ম্যাচ খেলেই পকেটে পুরেছেন গোটা দশেক উইকেট।

তবে এর চাইতেও চমকপ্রদ ব্যাপার সাক্সেনার বোলিং স্ট্রাইক রেট আর গড়। মূলত প্রতি উইকেট নিতে ১১.৯০ রান আর ১১.৪ বল খরচ করেছেন তিনি! শুরুর দিনে অবশ্য সাক্সেনা আইপিএলে ডাক পেয়েছিলেন, কিন্তু অভিষেকটা হয়নি। এবার দেখা যাক।

  • লুকমান মেরিওয়ালা

৮ ম্যাচে ১৫ উইকেট যার মধ্যে একটা টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আছে ফাইফার নেওয়ার কীর্তি- লুকমানের চাইতে সেরা মৌসুম কি আর কেউ কাটাতে পারত? এ প্রশ্ন অবশ্য তর্কসাপেক্ষ, কিন্তু বরোদার ২৯ বছর বয়সী এই পেসার হয়েছেন সৈয়দ মুশতাক আলী ট্রফির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক।

এবার বরোদাকে ফাইনালে নিতেও লুকমান রেখেছেন দারুণ কার্যকরী ভূমিকা। প্রত্যেক বছরই আমরা আইপিএলে পেস বোলিংয়ে নতুন নাম দেখি, এবার সে নামটা লুকমান হতেই পারে!

  • কেদার দেবধর

৩১ বছর বয়সী এই উইকেট-কিপার ব্যাটসম্যান বরোদার আরেকজন পারফর্মার। ওপেনিংয়ে নেমে খেলেছেন ৮ ম্যাচ আর তাতেই ঝুলিতে ৩৪৯ রান। কেদারের স্ট্রাইক রেটটাও বেশ ভাল বলা যায়- ১১৩.৬৮! এছাড়াও এই ট্রফির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানসংগ্রাহক তিনি।

আইপিএলে যারা উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের খোঁজে তাঁরা কেদারকে চাইলে দলে নিতে পারে। ঠান্ডা মাথার এ ব্যাটসম্যানের ক্ষমতা আছে দলকে বেশ কিছু জেতানোর, অন্তত মুশতাক আলী ট্রফিতে সেরকমটাই দেখা গেছে। বাকিটা আইপিএল নিলামে দেখা যাক!

  • মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন

২৬ বছর বয়সী কেরালার এই ক্রিকেটার ইতোমধ্যেই সাড়া ফেলে দিয়েছেন মিডিয়াতে। মুম্বাইয়ের সাথে ৩৭ বলে করা সেঞ্চুরিতে টুর্নামেন্টের শুরুর দিকে নজর কেড়েছিলেন তিনি। তা এ ছাড়াও কিন্তু এ টুর্নামেন্টটা বেশ ভাল গেছে ভারতের নতুন এই আজহারউদ্দিনের।

পুরো টুর্নামেন্টেই ৫৩.৫০ গড়ে করেছেন ২১৪ রান, স্ট্রাইক রেটটা মাঠা ঘুরিয়ে দেওয়ার মত- ১৯৪.৫৪! খুব বেশি কাকতালীয় কিছু না হলে এবার আইপিএলে দেখা যাচ্ছে আজহারউদ্দিনকে, বিশেষ করে যারা ধ্বংসাত্মক ওপেনারের খোঁজে আছে!

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...