শূন্যজয়ী ব্যাটসম্যান সমগ্র

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রায় সব তারকাই শূন্য রানে আউট হয়েছেন। কিন্তু, এর ব্যতিক্রম কিছু ঘটনাও আছে। যারা কিনা পুরো ক্যারিয়ার জুড়ে একবারও শুন্য রানে আউট হননি। সব সংস্করণে একবারও শুন্য রানে আউট হননি এমন কোনো ক্রিকেটার নেই। কিন্তু নির্দিষ্ট একটি সংস্করণে শূন্য রানে আউট হননি সে রকম ক্রিকেটার আছে।

শূন্য কী কাউকে পিছু ছাড়ে!

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রায় সব তারকাই শূন্য রানে আউট হয়েছেন। কিন্তু এর ব্যতিক্রম কিছু ঘটনাও আছে। যারা কিনা পুরো ক্যারিয়ার জুড়ে একবারও শূন্য রানে আউট হননি। সব সংস্করণে একবারও শুন্য রানে আউট হননি এমন কোনো ক্রিকেটার নেই। কিন্তু নির্দিষ্ট একটি সংস্করণে শুন্য রানে আউট হননি সে রকম ক্রিকেটার আছে।

টেস্ট

ক্রিকেটের অভিজাত সংস্করণ হলো টেস্ট ক্রিকেট। এখানে শুন্য রানে আউট না হওয়া ক্রিকেটারের সংখ্যা নেহাতই কম নয়। সর্বনিন্ম ৩০ ইনিংস ব্যাটিং করেছেন এমন ক্রিকেটারদের মধ্যে এই সংখ্যা ১০ জন।

  • জিম বার্ক (অস্ট্রেলিয়া)

১৯৫১ থেকে ১৯৫৯ সাল পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার হয়ে খেলেছেন জিম বার্ক। এই সময়ে তিনি অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ২৪ টেস্ট খেলেন। ২৪ টেস্টে ৪৪ ইনিংস ব্যাটিং করে একবারের জন্যও শুন্য রানে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেননি বার্ক। টেস্ট ক্রিকেটে তিনিই সর্ব্বোচ্চ সংখ্যক ইনিংস খেলে শূন্য রানে আউট না হওয়ার রেকর্ড গড়েছেন।

  • রেজি ডাফ (অস্ট্রলিয়া)

১৯০২ থেকে ১৯০৫ সাল পর্যন্ত ২২ টেস্ট খেলেছেন রেজি ডাফ। ২২ টেস্টে ৪০ ইনিংস ব্যাটিং করে কখনোই শুন্য রানে আউট হননি ডাফ।

  • ব্রিজেশ প্যাটেল (ভারত)

ব্রিজেশ প্যাটেল ১৯৭৪ থেকে ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত এই তিন বছরে মোট ২১ টেস্ট খেলেন। ২১ টেস্টে ৩৮ ইনিংসে ব্যাটিং করে শূন্য রানে কখনই আউট না হবার রেকর্ড করেছে। ভারতীয়দের তিনি একমাত্র ক্রিকেটার যিনি টেস্টে কখনোই শুন্য রানে আউট হননি।

  • রবার্ট ক্রিস্টিয়ানি (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)

রবার্ট ক্রিস্টিয়ানি ১৯৪৮ থেকে ১৯৫৪ সাল পর্যন্ত ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে খেলেছিলেন। এই ছয় বছরে ২২ টেস্ট খেলেছেন ক্রিস্টিয়ানি। ২২ টেস্টে  ৩৭ ইনিংসে ব্যাটিং এর সুযোগ পেয়ে একবারের জন্য শূন্য রানে আউট হননি ক্রিস্টিয়ানি।

  • ডেভিড হটন (জিম্বাবুয়ে)

ডেভিড হটন জিম্বাবুয়ের টেস্ট খেলেছেন ১৯৯২ থেকে ১৯৯৭ পর্যন্ত। তিনি এই পাঁচ বছরে ২২ টেস্টে ৩৬ ইনিংসে ব্যাটিং করতে নামেন হটন। এই ৩৬ ইনিংসে কখনই ডাক মারেননি ডেভিড হটন।

  • ওয়াকার হাসান (পাকিস্থান)

ওয়াকার হাসান ১৯৫২ থেকে ১৯৫৯ সাল পর্যন্ত পাকিস্তান দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন। ৭ বছরে মোট ২১ টেস্ট খেলেন ওয়াকার হাসান। ২১ টেস্টে ব্যাটিং করেন ৩৫ ইনিংস। এই ৩৫ ইনিংসে শূন্য রানে আউট হননি।

  • বার্নার্ড জুলিয়েন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)

বার্নার্ড জুলিয়েন ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে খেলেছেন ১৯৭৩ থেকে ১৯৭৭ সাল পর্যন্ত। এই সময়ে ক্যারিয়ারে ২৪ টেস্ট খেলেছেন। ২৪ টেস্টে ব্যাটিং করার সুযোগ পেয়েছেন ৩৪ ইনিংসে। কিন্তু এই ৩৪ ইনিংসে কখনই শূন্য রানে আউট হননি তিনি।

  • ব্রেন্ডন ন্যাশ (ওয়েস্ট ইন্ডিজ)

এই ক্যারিবিয়ান ২০০৮ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত প্রতিনিধিত্ব করেছেন জাতীয় দলকে। জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন ২১ টেস্ট। ২১ টেস্টে ৩৩ ইনিংসে ব্যাটিং করেছেন ন্যাশ। এই ৩৩ ইনিংসে কখনই শূন্য রানে প্যাভিলিয়নে ফেরেননি তিনি।

  • বিলি জুলিচ (দক্ষিণ আফ্রিকা)

বিলি জুলিচ দক্ষিন আফ্রিকার হয়ে খেলেছেন ১৯১০ থেকে ১৯২১ সাল পর্যন্ত। এই সময়ে তিনি মাঠে নামতে পেরেছেন ১৬ টেস্টে। ১৬ টেস্টে প্রত্যেকবারই দুই ইনিংসে ব্যাট করার সুযোগ পেয়েছেন। কিন্তু কখনো শূন্য রান করেন নি তিনি।

  • হার্বি কলিন্স (অস্ট্রেলিয়া)

হার্বি কলিন্স অস্ট্রেলিয়াকে প্রতিনিধিত্ব করেছেন ১৯২০ থেকে ১৯২৬ সাল পর্যন্ত। এই সময়ে টেস্ট খেলেছেন ১৯ টি। ১৯ টেস্টে ৩১ বার ব্যাট করতে নেমেছিলেন। কিন্তু একবারও শূন্য রানে আউট হননি কলিন্স।

টেস্টে সর্বনিম্ন ৩০ ইনিংস খেলে শুন্য রানে আউট হবার তালিকায় আরো একজন ক্রিকেটার আছেন। যিনি হলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের শেমরন হেটমায়ার। তিনি এখনো টেস্ট খেলেন । তিনি যদি ক্যারিয়ারের শেষ পর্যন্ত এই রেকর্ড ধরে রাখতে পারেন, তাহলে তিনি হবেন ২০০০ সালের পরের সময়ে দ্বিতীয় ক্রিকেটার।

ওয়ানডে

ওয়ানডে ক্রিকেটেও বেশ কিছু ক্রিকেটার আছেন যারা শূন্য রানে আউট (সর্বনিম্ন ৩০ ইনিংস) হননি।

  • কেলপার ওয়েসেলস (অস্ট্রেলিয়া/দক্ষিণ আফ্রিকা)

কেলপার ওয়েলস আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে খেলেন ১৯৮৩ থেকে ১৯৯৪ সাল্ পর্যন্ত। এই ১১ বছরে অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে খেলেন তিনি। এই সময়ের মধ্যে ওয়েলেস ১০৯ ওয়ানডে ম্যাচ খেলেন। এর মধ্যে ব্যাটিং করেন ১০৫ ইনিংসে। এই ১০৫ ইনিংসে কখনোই শূন্য রানে আউট হননি তিনি।

  • যশপাল শর্মা  (ভারত)

যশপাল সিং ১৯৭৮ থেকে ১৯৮৫ সাল পর্যন্ত ভারতকে প্রতিনিধিত্ব করেন। এই সময়ের মধ্যে খেলেন ৪২ টি ওয়ানডে। এর মধ্যে ৪০ ওয়ানডেতে ব্যাটিং করেন তিনি। ৮০ ইনিংসে কখনই শুন্য রানে ড্রেসিংরুমে ফেরেননি তিনি।

  • পিটার কার্স্টেন (দক্ষিণ আফ্রিকা)

পিটার কার্স্টেন ১৯৯১ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে খেলন। এই সময়ে তিনি দলে সু্যোগ পান ৪০ ওয়ানডেতে। ৪০ ওয়ানডেতে ব্যাটিং করে কখনোই শূন্য রানে আউট হননি তিনি।

  • জ্যাক রুডলফ (দক্ষিণ আফ্রিকা)

২০০৩ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে খেলেন রুডলফ। এই সময়ে ৪৫ টি ওয়ানডেতে দলে সুযোগ পান রুডলফ। ৪০ ওয়ানডের মধ্যে ৩৯ ইনিংসে ব্যাট হাতে মাঠে নামেন তিনি। কখনই শূন্য রানে ফেরত যেতে হয়নি তাকে।

  • নাথান হারিজ (অস্ট্রেলিয়া)

নাথান হারিজ অস্ট্রেলিয়া দলের হয়ে খেলেন ২০০২ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত। এই সময়ে দলে সুযোগ পান মাত্র ৫৮ ওয়ানডেতে। আর ব্যাটিং এর সুযোগ পেয়েছেন ৩২ ইনিংসে। এই ৩২ ইনিংসে কখনই শুন্য রানে আউট হননি তিনি।

  • জ্যাক রাসেল (ইংল্যান্ড)

১৯৮৭ থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেছেন তিনি।এই ১১ বছরে ৪০ ওয়ানডে প্রথম একাদশে ছিলেন তিনি। এর মধ্যে ৩১ ইনিংসে ব্যাট হাতে মাটে নামার সুযোগ পেয়েছিলেন। কখনই শূন্য রানে মাঠ ছাড়েননি তিনি।

এরা ছাড়াও স্কটল্যান্ডের ম্যাথু ক্রস এখন পর্যন্ত ডাক না মেরে ৪৮ ইনিংস পর্যন্ত ব্যাট করেছেন। যেহেতু তিনি এখনো ক্রিকেট ক্যারিয়ারের সমাপ্তি ঘটাননি তাই তাকে বিবেচনায় নেয়া হয়নি।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...