অভিযোগের মুখে পাকিস্তানের হোটেল পরিবর্তন

পাকিস্তান ক্রিকেট দলকে তাদের আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচের জন্য নিউইয়র্কের স্টেডিয়ামের কাছাকাছি একটি হোটেলে স্থানান্তরিত করে।

যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়ে নানা ধরণের অভিযোগের ছড়াছড়ি। অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দলের পক্ষ থেকে জানানো হচ্ছে অস্বস্তির কথা। তাই শ্রীলঙ্কার ঘটনার পর আইসিসি পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের অভিযোগের জবাব দিয়েছে।

তারা পাকিস্তান ক্রিকেট দলকে তাদের আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচের জন্য নিউইয়র্কের স্টেডিয়ামের কাছাকাছি একটি হোটেলে স্থানান্তরিত করে। পিসিবি দল প্রাথমিক হোটেল নিয়ে তাদের উদ্বেগ প্রকাশ করার পরে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

পাকিস্তান দলের আগের হোটেল স্টেডিয়াম থেকে ৯০ মিনিটের দূরত্বে ছিল। পিসিবি চেয়ারম্যান প্রাথমিকভাবে বরাদ্দ করা হোটেল থেকে স্টেডিয়ামে দীর্ঘ যাতায়াতের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ দায়ের করেন। যার জবাবে আইসিসি স্টেডিয়াম থেকে মাত্র পাঁচ মিনিটের দূরত্বে অবস্থিত হোটেলে দলটিকে নিয়ে যাওয়ার ব্যাবস্থা করে।

নতুন আবাসন পাকিস্তানের ভ্রমণের সময়কে অনেক কমিয়ে দিবে। যার ফলে দলের সুবিধা হবে এবং তাদের ম্যাচের প্রস্তুতি বাড়বে। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে পাকিস্তান রবিবার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারতের মুখোমুখি হবে। তারপরে ১১ জুন একই ভেন্যুতে কানাডার বিরুদ্ধে একটি ম্যাচ খেলবে তারা।

ভারত, যারা নিজেদের প্রথম ম্যাচ এই মাঠে জিতেছিল, তারা স্টেডিয়াম থেকে মাত্র ১০ মিনিটের দূরত্বে একটি হোটেলে অবস্থান করছে।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচে হারা শ্রীলঙ্কা দল একই রকম সমস্যার মুখোমুখি হয়েছিল। হোটেল থেকে তাদের স্টেডিয়ামের দূরত্ব এক ঘন্টারও বেশি ছিল।

পাকিস্তান দল ডালাসে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে তাদের প্রথম ম্যাচের পর নিউইয়র্কের উদ্দ্যেশ্যে রওনা দিবে। পিসিবির অভিযোগ এবং দলের স্থানান্তর সম্পর্কে সংবাদটি পিসিবির এক কর্মকর্তা প্রকাশ করে। তবে তিনি প্রকাশ্যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার অনুমোদন না থাকার কারণে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিষয়টি জানান।

দীর্ঘ ভ্রমন সংক্রান্ত ব্যাপারটি অংশগ্রহনকারী অনেক দলের উদ্বেগের কারণ হয়েছিল। পাকিস্তানকে স্থানান্তরের মাধ্যমে আইসিসি তাদের প্রতিক্রিয়া তুলে ধরে। তারা দলগুলোর জন্য ভাল পরিস্থিতি নিশ্চিত করতে চায়।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...