আজও যাদের অপেক্ষায় টেস্ট ক্রিকেট

রেকর্ড গুলো আবার প্রতিনিয়ত ভেঙে চূড়ে তৈরি হচ্ছে নতুন রেকর্ড। আবার কিছু রেকর্ড শুধুই ইতিহাস হয়ে থাকে। যেগুলো বছরের পর বছর থেকে যায় ধরা ছোঁয়ার বাইরে। এমন নানা রকম রেকর্ডের গল্প তো প্রায়ই বলি। তবে আজ আপনাদের টেস্ট ক্রিকেটের এমন কিছু রেকর্ডের কথা বলবো যেগুলো এখন অবধি কেও করতেই পারেনি। যেই রেকর্ড গুলো দেখার জন্য এত এত বছর ধরে অপেক্ষা করছে ক্রিকেট বিশ্ব।

ক্রিকেটের সবচেয়ে আকর্শনীয় অংশ বোধহয় তার রেকর্ড বইয়ের পাতা গুলো। ক্রিকেট প্রেমীরা সারাবছর নানা রকমের ক্রিকেটীয় রেকর্ডের সাক্ষী হয়। সেই রেকর্ড গুলো আবার প্রতিনিয়ত ভেঙে চূড়ে তৈরি হচ্ছে নতুন রেকর্ড।

আবার কিছু রেকর্ড শুধুই ইতিহাস হয়ে থাকে। যেগুলো বছরের পর বছর থেকে যায় ধরা ছোঁয়ার বাইরে। এমন নানা রকম রেকর্ডের গল্প তো প্রায়ই বলি। তবে আজ আপনাদের টেস্ট ক্রিকেটের এমন কিছু রেকর্ডের কথা বলবো যেগুলো এখন অবধি কেউ করতেই পারেনি। যেই রেকর্ড গুলো দেখার জন্য এত এত বছর ধরে অপেক্ষা করছে ক্রিকেট বিশ্ব।

  • এগারো নম্বর ব্যাটসম্যানের সেঞ্চুরি

টেস্ট ক্রিকেটে কোনো ১১ নম্বর ব্যাটসম্যান এখনো সেঞ্চুরির দেখা পাননি। যদিও প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে অনেকেই এই কীর্তি করেছেন। তবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট এখনো এই কীর্তি দেখার অপেক্ষায়। তবে এই রেকর্ডটি প্রায় করেই ফেলেছিলেন অস্ট্রেলিয়ার স্পিনার অ্যাস্টন আগ্যার।

অ্যাশটন অ্যাগার

২০১৩ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এক টেস্টে ৯৮ রান করেন তিনি। তাঁর অভিষেক ম্যাচেই তিনি এই ইনিংস খেলেন। তবে টেস্ট ক্রিকেটে ১১ নম্বর কোনো ব্যাটসম্যানের এটাই এখন অবধি সর্বোচ্চ ইনিংস।

  • এক ম্যাচে ২০ উইকেট

টেস্ট ক্রিকেটের দুই ইনিংসের সবগুলো উইকেটই নিয়েছেন একজন বোলার। এমন কীর্তিও কখনো দেখেনি টেস্ট ক্রিকেট। ইংলিশ স্পিনার জিম লেকার প্রথম এক ইনিংসের ১০ উইকেটই নেয়ার কৃতীত্ব দেখিয়েছিলেন। তারপর ভারতের স্পিনার অনিল কুম্বলেও এক ইনিংসের সবগুলো একাই নেন।

তবে এক ম্যাচের মোট ২০ উইকেট একজন বোলার কখনো পাননি। তবে জিম ল্যাকারই ওই ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ৯ উইকেট নিয়েছিলেন। ফলে ম্যাচের ১৯ উইকেটই পেয়েছিলেন তিনি। আর একটি উইকেটের জন্য ক্রিকেট বিশ্বকে কতকাল অপেক্ষা করতে হয় কে জানে।

জিম লেকার
  • এক ইনিংসে ১০ উইকেট ও সেঞ্চুরি

এক ম্যাচে ১০ উইকেট ও সেঞ্চুরি করেছেন এমন ক্রিকেটার ক্রিকেট ইতিহাসে আছেন মাত্র তিন জন। তাঁরা তিনজনই ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডারদের তালিকায় পড়েন। স্যার ইয়ান বোথাম, ইমরান খান ও সাকিব আল হাসান এই কীর্তি করেন।

তবে টেস্ট ক্রিকেটের কোনো এক ইনিংসে ১০ উইকেট ও সেঞ্চুরি করা কৃতীত্ব এখন অবধি কেও দেখাতে পারেননি। তবে সাকিব আল হাসান কিংবা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কোনো অলরাউন্ডারের কাছে এই রেকর্ড নিশ্চই দেখতে চাইবে ক্রিকেট দুনিয়া।

  • দুই ইনিংসেই ডাবল সেঞ্চুরি

কোনো টেস্ট ম্যাচের দুই ইনিংসেই ডাবল সেঞ্চুরি করা কোনো ব্যাটসম্যানও এখনো দেখেনি টেস্ট ক্রিকেট। এমনকি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটেও এই রেকর্ড আছে মাত্র দুইজন ক্রিকেটারের। তবে ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক গ্রাহাম গুচ ভারতের বিপক্ষে এক টেস্টে প্রথম ইনিংসে করেছিলেন ৩৩৩ রান।

দ্বিতীয় ইনিংসেও ডাবল সেঞ্চুরির পথেই এগোচ্ছিলেন এই গ্রেট ব্যাটসম্যান। তবে শেষ অবধি ১২৩ রানে অপারজিত থাকা অবস্থাতেই ইনিংস শেষ করতে হয় ইংল্যান্ডকে। তাই ক্রিকেট দুনিয়া এখনো অপেক্ষায় আছে এই রেকর্ডের।

  • চার বলে চার উইকেট

টেস্ট ম্যাচে টানা চার বলে চার উইকেট নেয়া কোনো বোলারও এখনো দেখেনি বিশ্ব ক্রিকেট। যদিও ৪৫ বার টেস্ট ক্রিকেটে হ্যাটট্রিক হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তবে চতুর্থ বলটায় উইকেটের দেখা পাননি কোনো বোলারই। তবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এই রেকর্ডের যাত্রা শুরু করেন শ্রীলঙ্কার পেসার লাসিথ মালেঙ্গা।

২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চার বলে চার উইকেট নেন তিনি। পরে রশীদ খানও এই কীর্তি করেন। ২০১৯ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আবারো টানা চার উইকেট নেন মালিঙ্গা। তবে টেস্ট ক্রিকেট আজও এই কীর্তির অপেক্ষায়।

আরও পড়ুন
মন্তব্যসমূহ
Loading...